আবারও খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার আদালত পরিবর্তন

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় শুনানির জন্য খালেদা জিয়ার করা আদালত পরিবর্তনের আবেদন আবারও মঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট। তবে এবার কোন আদালতে বদলি করা হয়েছে, তা এখনও জানাতে পারেননি খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। রবিবার আদালত পরিবর্তনের এই আদেশ দেন বিচারপতি মো. শওকত হোসেন ও বিচারপতি মো নজরুল ইসলাম তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ।

গত ২৬ এপ্রিল দ্বিতীয় বারের মতো আদালত পরিবর্তনের আবেদন করেন খালেদা জিয়া। আদালতে তার পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী জাকির হোসেন ভূঁইয়া ও ফারহানা শারাফাত। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান।

এর আগে পরিবর্তিত আদালতেও খালেদা জিয়া মামলা পরিচালনা করতে না চাওয়ার কারণ হিসেবে আবেদনকারী আইনজীবী জাকির হোসেন ভূইয়া সাংবাদিকদের জানান, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার বিচারক ঢাকার সিনিয়র স্পেশাল জজ কামরুল হোসেন মোল্লা এক সময় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইন শাখার পরিচালক ছিলেন। ওই সময় তিনি এ মামলাটি দেখভাল করেছিলেন।

গত ৮ মার্চ মামলাটি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ৩-এর বিচারক আবু আহম্মেদ জমাদ্দারের প্রতি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অনাস্থা আবেদন মঞ্জুর করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মামলাটি ওই আদালত থেকে স্থানান্তর করে ঢাকার সিনিয়র মহানগর বিশেষ জজ আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার বিবরণীতে জানা যায়, ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা দায়ের করে দুদক। এতিমদের সহায়তা করার উদ্দেশ্যে একটি বিদেশি ব্যাংক থেকে আসা ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ এনে এ মামলা দায়ের করা হয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*